মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ১১:২৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
Logo দি,জে.এ কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে পবিত্র ঈদুল আযহা’র শুভেচ্ছা জানিয়েছেন -জয়নাল আবেদীন Logo বাঁশখালী ছনুয়া ইউনিয়নে তিন’শ পরিবারকে নগদ অর্থ সহায়তা Logo পবিত্র ঈদুল আজহা’র শুভেচ্ছা জানিয়েছেন-শাহাজাদা নুরুল আবছার চিশতি Logo ক্যান্সার রোগীকে আর্থিক অনুদান দিল প্রবাসী মানব কল্যাণ ফাউন্ডেশন Logo বাঁশখালী ছনুয়া ইউনিয়নে ১৭৮১ পরিবারের মাঝে ভিজিএফ এর চাল বিতরণ Logo ২৩ জুলাই থেকে কঠোর লকডাউন, বন্ধ থাকবে গার্মেন্টসহ সকল শিল্পপ্রতিষ্ঠান Logo যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বাঁশখালী প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত: Logo নেইমারকে শান্তনা দিয়ে যা বলেলেন মেসি Logo ৫৩ বছর পর চ্যাম্পিয়ন ইতালি Logo পবিত্র ঈদুল আজহার গুরত্ব ও তাৎপর্য-আহমেদ কবির

নামাজের গুরুত্ব ও ফজীলত – মাওলানা শহিদুল ইসলাম আল-কাদেরী

ইসলামিক ডেস্ক : / ৮০ বার পঠিত
সময় : শনিবার, ৩ জুলাই, ২০২১, ৮:২০ অপরাহ্ণ

নামাজের পরিচয়ঃ

মুসলিম হবার পর সর্বপ্রথম যে কাজটি করা একজন মানুষের ওপর ফরজ বা অবশ্য কর্তব্য হয়ে দাঁড়ায়, তা হলো  নামাজ ৷ আজকের আলোচনায় আমরা নামাজের গুরুত্ব ও ফজীলত তুলে ধারার চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ।

নির্ধারিত সময়ে বিশেষ পদ্ধতিতে যে ইবাদাত করা হয়, সেটাই নামাজ ৷ ঈমানের পর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আমল এটি ৷ বলা যায়, একজন মুসলিমের পরিচয়ই প্রকাশ পায় নামাজের মাধ্যমে ৷ দাড়ি, টুপি এবং জুব্বা মোটকথা চেহার সুরত ও পোশাক আশাক অন্য ধর্মাবলম্বীদের থাকলেও তাদের সাথে পার্থক্য সূচিত হয় নামাজের মাধ্যমে ৷

কুরআনুল কারিমে নামাজের ব্যপারে সর্বাধিক গুরুত্বারোপ করা হয়েছে ৷ প্রায় আশি জায়গায় নামাজের আলোচনা এসেছে ৷

নবীজী সাঃ শতাধিক হাদীসে যথাযথভাবে নামাজ পড়ার তাগিদ দিয়েছেন ৷ নামাজ হচ্ছে দীনের খুঁটি বা স্তম্ভ ৷ ইসলাম দাঁড়িয়ে আছে যে কটি মৌলিক আমলের ওপর, তার মধ্যে নামাজ সর্বাগ্রে ৷

নামাজের প্রভাব সর্বজন স্বীকৃত ৷ অশ্লীলতা, বেহায়াপনা ও গুনাহ থেরে ব্যক্তিকে বিরত রাখার ব্যাপারে নামাজের জুড়ি নাই ৷

কোনে বান্দা যখন আল্লাহ তাআলাকে হাজির নাযির জেনে ৷ আল্লাহ তার সম্মুখে আছেন ৷ তাঁর নামাজ প্রত্যক্ষ করছেন ৷ এই ধ্যান করে ৷ খুশুখুযু তথা বিনয়, স্থিরতা ও প্রেমভয় নিয়ে নিয়মিত নামায আদায় করতে থাকে ৷ তখন এই নামায রিপুর দোষ থেকে তার অন্তরকে পরিশুদ্ধ করে দেয় ৷ জীবনকে পরিশীলিত করে তোলে।

অন্যায় ও অপরাধ থেকে তাকে দূরে সরিয়ে আনে। এই নামায সততা, সাধুতা, আল্লাহ প্রেম ও খোদাভীতির গুণ তাকে উপহার দেয়। এ জন্যই ইসলামে নামাযের এত গুরুত্ব, সমস্ত ফরজ ইবাদতের উপর নামাযের শ্রেষ্ঠত্ব। এবং এই কারণেই নবীজীর আদত ছিলো, কেউ ইসলাম গ্রহণ করলে তাওহীদ শিক্ষা দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রথমেই তাকে Namaj আদায়ের আদেশ দিতেন, অঙ্গীকার নিতেন।

নামাজের গুরুত্ব সম্পর্কে হাদিস

পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের মধ্যে এশা ও ফজরের জামায়াতের গুরুত্ব সবচেয়ে বেশি। এ দুই সময়ে মানুষ সাধারণত পরিবারের সঙ্গে সময় কাটায় ও বিশ্রাম করে। ফলে এ জামাত দুটিতে যথেষ্ট অবহেলা ও গাফিলতি হয়ে থাকে। এজন্য হাদিসে এর প্রতি বিশেষভাবে উৎসাহিত ও অনুপ্রাণিত করা হয়েছে।

عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ، أَنَّ رَسُولَ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ: «لَوْ يَعْلَمُ النَّاسُ مَا فِي النِّدَاءِ وَالصَّفِّ الْأَوَّلِ ثُمَّ لَمْ يَجِدُوا إِلَّا أَنْ يَسْتَهِمُوا عَلَيْهِ لَاسْتَهَمُوا عَلَيْهِ، وَلَوْ يَعْلَمُونَ مَا فِي التَّهْجِيرِ لَاسْتَبَقُوا إِلَيْهِ، وَلَوْ عَلِمُوا مَا فِي الْعَتَمَةِ وَالصُّبْحِ لَأَتَوْهُمَا وَلَوْ حَبْوًا»

আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ:

রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) : বলেছেন : মানুষ যদি জানত, আযান দেয়া এবং সালাতের প্রথম কাতারে দাঁড়ানোর মধ্যে কি ফযীলত রয়েছে, তবে তা পাবার জন্য লটারী ছাড়া উপায় না থাকলে তারা তার জন্য লটারী করত। আর তারা যদি জানত যে, দ্বি-প্রহরের (যোহর ও জুম’আ) সালাতের প্রথম সময়ে গমনে কি রয়েছে, তবে তার দিকে দ্রুতগতিতে ধাবিত হত। আর তারা যদি জানত ইশা ও ফজরের সালাতে কি রয়েছে, তাহলে উভয় সালাতের জন্য অবশ্যই হামাগুড়ি দিয়ে হলেও উপস্থিত হত।

[সুনানে আন-নাসায়ী, হাদিস নং ৬৭১]

সুন্নত নামাজের মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে ফজরের দুই রাকাত সুন্নত। হাদিসে এর প্রভূত ফজিলত বর্ণিত হয়েছে, যা অন্য সুন্নতের ক্ষেত্রে হয়নি।
عَنْ عَائِشَةَ رَضِيَ اللهُ عَنْهَا قَالَتْ لَمْ يَكُنْ النَّبِيُّ صلى الله عليه وسلم عَلَى شَيْءٍ مِنْ النَّوَافِلِ أَشَدَّ مِنْهُ تَعَاهُدًا عَلَى رَكْعَتَيْ الْفَجْرِ.

‘আয়িশা (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ:

তিনি বলেন, নবী (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) কোন নফল সালাতকে ফজরের দু’রাক’আত সুন্নাতের চেয়ে অধিক গুরুত্ব প্রদান করতেন না।

[সহিহ বুখারী, হাদিস নং ১১৬৯]

রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, ‘ফজরের দুই রাকাত (সুন্নত) দুনিয়া ও দুনিয়ার মধ্যে যা কিছু আছে তার চেয়ে উত্তম।’ মুসলিম।

হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘শত্রু বাহীনি তোমাদের তাড়া করলেও তোমরা এ দুই রাকাত কখনো ত্যাগ করো না।’ ( আবু দাউদ )।

কিন্তু আফসোসের বিষয় হলো, বহু মুসলমান নামাজই পড়ে না। আর যারা নামাজী তাদের মধ্যে অনেকে ফরজ নামাজ নিয়মিত পড়তে পারে না। যারা নিয়মিত পড়ে তার মধ্যেও অনেকে জামাতে শরিক হতে পারে না।

নামাজ পড়ার উপকারিতা ও ফজিলত

সালাত আমাদের ওপর ফরজ ৷ অবশ্য কর্তব্য বিধান ৷ তবুও এর উপকারিতা বিদ্যমান ৷ আল্লাহ তাআলার যে বান্দা দৈনিক পাঁচবার আল্লাহ তাআলার সামনে হাত জোড় করে দাঁড়ায় ৷ তাঁর প্রশংসা ও স্তুতি গায় ৷ তাঁর সামনে ঝোঁকে ও সিজদাবনত হয় এবং দুআয় নিমগ্ন হয় ৷ সে বান্দা আল্লাহ তাআলার বিশেষ রহমত ও মুহাব্বতের অধিকারী হয়ে যায়। তাঁর গোনাহখাতা ঝরে যেতে থাকে, পাপের পঙ্কিলতা থেকে জীবন শুদ্ধ হতে থাকে, অন্তর আল্লাহ তাআলার নূরে নূরান্বিত হয়ে ওঠে। সে আল্লাহর ঘনিষ্ঠ হতে থাকে ৷ প্রিয় নবীজী সাঃ হাদীস শরীফে অত্যন্ত সুন্দর উদাহরণ দিয়ে বুঝিয়েছেন ৷ পড়ুন তার ভাষায়–
أَرَأَيْتُمْ لَوْ أَنَّ نَهْرًا بِبَابِ أَحَدِكُمْ يَغْتَسِلُ مِنْهُ كُلَّ يَوْمٍ خَمْسَ مَرَّاتٍ، هَلْ يَبْقَى مِنْ دَرَنِهِ شَيْءٌ؟ قَالُوا: لَا يَبْقَى مِنْ دَرَنِهِ شَيْءٌ، قَالَ: فَذَلِكَ مَثَلُ الصَّلَوَاتِ الْخَمْسِ، يَمْحُو اللهُ بِهِنَّ الْخَطَايَا

“বলো তো, তোমাদের কারো ঘরের পাশেই যদি নহরনালা বহমান থাকে, আর সে তাতে দিনে পাঁচবার গোসল করে, তাহলে কি তার শরীরে কোনো ময়লা থাকতে পারে? সাহাবারা বললেন, ইয়া রাসুল আল্লাহ! কোনো ময়লা থাকতে পারে না। নবীজী বললেন, পাঁচ ওয়াক্ত নামাযেরও উদাহরণ তেমন। এর বরকতে বান্দার গোনাহখাতা মাফ হয়ে যায়।” [সহীহ মুসলিম, হাদীস নং ৬৬৭]

লেখক :হাফেজ মাওলানা শহিদুল ইসলাম আল-কাদেরী
খতিব:মুক্তিযোদ্ধা জামে মসজিদ, পশ্চিম খুলশী,জালালাবাদ।
শিক্ষার্থী:জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া কামিল(মার্স্টাস) মাদ্রাসা,ষোলশহর, চট্টগ্রাম।
ফোন নাম্বার :০১৮২৮৮৯০০৬৬


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

Theme Customized By Theme Park BD