শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৫১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
Logo আজ ১২ই ভাদ্র কবি নজরুল ইসলামের মৃত্যুবার্ষিকী Logo বাঁশখালীর চাম্বলে পুকুরে ডুবে শিশুর মৃত্যু Logo বাঁশখালী-আনোয়ারা জেলেদের বিরোধ মিমাংসায় দুই উপজেলা প্রশাসনের বৈঠক Logo কুতুবদিয়ার কৃতিসন্তান আরিফ উল্লাহর পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন Logo বাঁশখালীর মেয়ে মাসুমা রাঙ্গামাটির এসিল্যান্ড হওয়ায় অভিনন্দন জানালেন:আলহাজ্ব আসহাব উদ্দিন চেয়ারম্যান Logo বাঁশখালীর গন্ডামারায় নিখোঁজ চীনা নাগরিকের ডুবা থেকে লাশ উদ্ধার Logo সিআরবি এলাকা থেকে সরকারী-বেসরকারী অংশীদারিত্বে (পিপিপি) হাসপাতাল ও মেডিকেল কলেজ নির্মাণ প্রকল্প Logo শতবর্ষী সিআরবিতে হাসপাতাল নয় Logo কাথরিয়া ইউনিয়নে করোনা টিকাদান কার্যক্রম উদ্বোধন Logo বাঁশখালীতে Covid-19 ভ্যাকসিন প্রদান উদ্বোধন করলেন সাংসদ মোস্তাফিজ

শতবর্ষী সিআরবিতে হাসপাতাল নয়

মুহাম্মদ তাফহীমুল ইসলাম, বাঁশখালী, চট্টগ্রাম / ৬৫ বার পঠিত
সময় : বৃহস্পতিবার, ১২ আগস্ট, ২০২১, ১:২০ পূর্বাহ্ণ

বন্দরনগরী চট্টগ্রামের মানুষের মন সতেজ করার উন্মুক্ত সবুজ মিলনায়তন সিআরবি। এখানে কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে বেশ কয়েকটি শতবর্ষী বটবৃক্ষ। এই বৃক্ষের ছায়া ও মায়া পেয়ে মানুষ বারবার ছুটে আসে সিআরবির শিরিষতলায়। মনকে সতেজ ও প্রফুল্ল করতে মানুষ এখানে একান্তে সময় কাঁটায়। সিআরবির সবুজ গাছের ঢালের ফাঁক দিয়ে অপলক চেয়ে থাকে নীল আকাশের দিকে। মনভরে নিঃশ্বাস ফেলে আবার গ্রহণ করে অকৃত্রিম অক্সিজেন। ছায়া ও মায়ার মোহ লাগিয়ে এভাবে সিআরবি পরিণত হয়েছে গণমানুষের আবেগ, অনুভূতির জায়গায়।

সিআরবির নান্দনিক প্রাকৃতিক পরিবেশকে হুমকিতে ফেলে সেখানে একটি হাসপাতাল স্থাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এই খবর জানাজানি হবার পর সর্বমহলে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। এই উদ্যোগের বিরোধীতা করে হয়েছে মিটিং, সভাও। চট্টগ্রামবাসীর একটাই দাবি, পরিবেশের ক্ষতি করে সিআরবিতে কোন অবস্থাতেই হাসপাতাল হতে দেওয়া হবে না। সমাজবিজ্ঞানী ড. অনুপম সেনের মতো মানুষ সিআরবি রক্ষায় আমরণ অনশনের ঘোষণাও দিয়েছেন!

প্রকৃতির আশীর্বাদেই মানুষ পৃথিবীতে বেঁচে আছে। প্রকৃতি মুখ ফিরিয়ে নিলে মানুষের করুণ অবস্থা হবে। করোনার কবলে পড়ে মানুষ এখন যেই অক্সিজেনের জন্য হাহাকার করছে, সৃষ্টির আদিকাল থেকে মানুষকে বিনামূল্যে এই অক্সিজেন সরবরাহ করছে প্রকৃতিই। এই অক্সিজেনের অভাবেই এখন প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ মারা যাচ্ছে। অথচ আমরা বিষয়টি সেভাবে উপলব্ধি করতে পারিনি। বুঝলেও না বুঝার ভান করে আছি।

চারিদিকে সবুজ পাহাড়, মাঠ দখল হয়ে গড়ে ওঠছে ইট, পাথরের স্থাপনা। উন্নয়নের সাইনবোর্ড টাঙ্গিয়ে সবুজের বুক চিড়ে স্থাপন করা হচ্ছে ব্যবসা কেন্দ্র। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় প্রকৃতিকে সুরক্ষিত রাখার বিকল্প নেই। কিন্তু আমরা প্রকৃতির বুকে আঘাত করে প্রতিনিয়ত নিজেদের বেঁচে থাকার পরিবেশকেই ধ্বংস করে দিচ্ছি। ‘প্রকৃতির প্রতিশোধ’ বলে একটা কথা আছে। এই কথাটা মোটেও মিথ্যা নয়। সহ্য সীমা অতিক্রম হয়ে গেলে প্রকৃতিও প্রতিশোধ নেয়া শুরু করবে। ঘনঘন পাহাড় ধস, ভূমিকম্প, ঘূর্ণিঝড়সহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের মাধ্যমে আমরা যার নমুনা বারবার দেখতে পাচ্ছি।

দেশের বাণিজ্যিক রাজধানী খ্যাত চট্টগ্রামে মানুষের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতে হাসপাতালের খুব প্রয়োজন। কিন্তু সিআরবির উন্মুক্ত সবুজ মিলনায়তন ধ্বংস করে তা নয়। এই সিআরবির সাথে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও বাঙালি সংস্কৃতির ঐতিহ্য জড়িয়ে আছে। তাই সিআরবিতে আঘাত করা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আঘাত করার শামিল। আমরা আশা করি, যৌক্তিক জন দাবি আমলে নিয়ে সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণের আত্মঘাতী উদ্যোগ শিগগির বাতিল করে সিআরবির সবুজ প্রকৃতি ও পরিবেশ সুরক্ষার উদ্যোগ নেয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

Theme Customized By Theme Park BD